গাজীপুর গৃহবধূ রহস্যজনক মৃত্যু


  প্রকাশিত হয়েছেঃ  ০৬:৫৫ PM, ১০ ডিসেম্বর ২০২১


মো.রবিউল ইসলাম, টঙ্গীঃ

গাজীপুরের পূবাইল থানাধীন হরবাইদ (গোয়ালগাঁ) এলাকায় যৌতুক না পায়ে গৃহবধূকে খুন করার অভিযোগ পাওয়া গেছে। গত ৭ই ডিসেম্বর এঘটনায় পূবাইল থানা একটি মামলা দায়ের করা হয় ।নিহত ওই গৃহবধূর নাম আফসানা আক্তার মিমি(২১) সে পূবাইল থানাধীন হায়দরাবাদ ঈদগাঁওপাড়া এলাকারর আব্দুস সালাম মিয়ার মেয়ে।এঘটনার পর স্বামী ও শ্বশুর কে আটক করা হয়েছে ।

নিহতের পরিবার জানান,প্রায় ২ বছর আগে হরবাইদ (গোয়ালগাঁ) এলাকায় স্থানীয় ইদ্রিস আলীর ছেলের ফাইজুল ইসলাম পলাশের সাথে পারিবারিক ভাবে বিয়ে হয় নিহত আফসানা মিমির। বিয়ের কিছু দিন পর থেকেই নির্যাতনের শিকার হতে থাকে আফসানা। প্রথম দিকে ছোট ছোট দাবি দাওয়া করে আসলেও সময়ে সাথে সাথে চাহিদার পরিমাণ বাড়তে থাকে। এরইমধ্যে আফসানা মিমি কোলজুড়ে আসে ফুটফুটে একটি ছেলে সন্তান। সন্তানের মুখের দিকে তাকিয়ে নিরবে সব দাবি পুরন করার চেষ্টা করছিলো নিহত আফসানা আক্তার মিমির পরিবার। সামান্য কিছু আসবাবপত্র জন্য প্রায়ই অত্যাচার করত নিহতের শশুর ইদ্রিস আলী, স্বামী ফাইজুল ইসলাম পলাশ, ননদ নাসরিন আক্তার ও বড় ননদ ইয়াসমিন।

এবিষয় হরবাইদ (গোয়ালগাঁ) এলাকার স্থানীয়দির সাথে কথা বলে তারা অভিযোগ করে বলেন,ইদ্রিস ও তার ছেলে ফাইজুল ইসলাম পলাশ খুবি অত্যাচার করত করতো মিমির উপর। ঘটনা আগেও বেশ কয়েকবার তাদের বাড়ীতে থেকে উচ্চ গলায় অকথ্য ভাষায় গালিগালাজ এর শব্দ শোনা যাচ্ছে এবং বেশ কয়েকবারই মারধরেরও বিষয় নজরে এসেছে। তবে ঘটনার দিন স্থানীয় ওয়ার্ড কাউন্সিলর আব্দুস সালাম ঘটনাস্থলে উপস্থিত হয়ে দরজা ভাগেন। কিন্তু দরজা ভাঙ্গার বা সেই সময়ের কোনরকম ভিডিও ডকুমেন্ট রাখেননি তিনি।

এবিষয় ওয়ার্ড কাউন্সিলরের সাথে বেশ কয়েকবার মুঠোফোনে যোগাযোগ করার চেষ্টা করা হলেও মুঠোফোনে যোগাযোগ করা সম্ভব হয়নি।

এ বিষয়ে গাজীপুর মেট্রোপলিটন গাছা জোনের সহকারী পুলিশ কমিশনার আহসানুল হক জানান, বিষয়টি নিয়ে আমরা গভীর তদন্ত করছি। ৪জনকে আসামি করে একটি মামলা দায়ের করেছে নিহতের বাবা। তদন্ত চলমান আছে। তদন্ত সাপেক্ষে রহস্য উদঘাটন ও আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

 261 total views,  1 views today

আপনার মতামত লিখুন :