টঙ্গীতে মাদক ও দেহ ব্যবসায় বাধা দেওয়ায় কাল হয়ে দাঁড়ালো যুবলীগ নেতা ইসমাঈলের

দৈনিক আজকের খবরদৈনিক আজকের খবর
  প্রকাশিত হয়েছেঃ  ০১:০০ PM, ০৯ জুন ২০২২

নিজস্ব প্রতিবেদকঃ

টঙ্গী পশ্চিম থানাধীন ৫৪ নং ওয়ার্ড এলাকায় স্থানীয় এলাকাবাসীর সাথে থেকে মাহফুজা আক্তার লিমা নামে এক নারীকে মাদক ও দেহ ব্যবসায় বাধা দেওয়ায় মিথ্যা মামলার শিকার হয়েছেন বলে জানিয়েছে স্থানীয় যুবলীগ নেতা মোঃ ইসমাইল হোসেন।

সরেজমিনে এলাকাবাসীদের সাথে কথা বলে জানা যায়, মাহফুজা আক্তার লিমা ৫৪ নং ওয়ার্ডের একটি বাসায় দীর্ঘদিন যাবত ভাড়া থাকতেন। নিয়মিত অপরিচিত লোকজনের আনাগোনায় বিষয়টি স্থানীয়দের দৃষ্টিতে আসে। পরবর্তীতে স্থানীয়দের উদ্যোগে এলাকার লোকজন মাহফুজা আক্তার ওরফে লিমার বাসায় গিয়ে মাদক ও দেহব্যবসায় ব্যাবহার করা হয় এমন উপকরণসহ বেশ কয়েকজন নারী কর্মীসহ ধরার পর বাড়ি থেকে বের করে দেয় যায় একটি ভিডিও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ভাইরাল হয়। এছাড়া লিমা অন্য ব্যাক্তির সহযোগীতায় পুনরায় একই বাড়ির নিচ তলায় বাসা ভাড়া নেয়। ভাড়া নেওয়ার কিছুদিন পর বাড়ীওয়ালার চোখে পড়লে লিমাকে পুনরায় বাড়ী থেকে বের করে দেওয়া হয়।
ইসমাইল হোসেন জানায়, মাদক ও দেহ ব্যাবসায় বাধা দেওয়ায় যারা আমাকে রাজনৈতিক ভাবে তাদের প্রতিদন্ধি মনে করে তারা ইন্দন ও সহযোগীতায় করে দেহ ব্যাবসায়ী মাহফুজা আক্তার লিমাকে দিয়ে আমার বিরুদ্ধে হয়রানিমূলক মামলা করিয়েছে। মাফফুজা আক্তার লিমার দেহব্যাবসার সমন্ধে এলাকার অনেকেই অবগত রয়েছে। তবে আমার বিরুদ্ধে যে অভিযোগ করা হয়েছে তা সম্পুন্ন বানোয়াট ও ভিত্তিহীন। প্রকৃতপক্ষে ফারুক নামে একজনকে সাথে নিয়ে যাওয়ার সময় মাহফুজা ইচ্ছা করে পিছনে পিছনে যায় এবং সে ওখান থেকে নিজেই চলে আসে তার সাথে কেউ কোন কথাও বলে নাই।

তবে, যুবলীগ নেতা ইসমাইল হোসেনের সাথে কিছুদিন যাবত ফরহাদ হোসেন নামে স্থানীয় এক নেতার দীর্ঘ কয়েকদিন যাবত বিরোধ চলছিলো। তবে গত ৭ই জুন মঙ্গলবার রাতে টঙ্গী পূর্ব থানার সামনে দেহ ব্যাবসায়ী মাহফুজা আক্তার লিমা, স্থানীয় নেতা ফরহাদ ও শিরিন আক্তার কে দীর্ঘ সময় আলোচনার বিষয়টি স্থানীয় গণমাধ্যম কর্মীদের দৃষ্টিতে আসে। এসময় ইসমাইলের বিরুদ্ধে সবাদ প্রকাশ করার জন্য কয়েকজন সাংবাদিকের সঙ্গে কথা বলতে দেখা যায় মাহফুজা, শিরিণ ও ফরহাদ কে।

 99 total views,  1 views today

আপনার মতামত লিখুন :