রায়পুরে সরকারি হাসপাতালে অতিমাত্রায় লোডশেডিং ব্যাহত হচ্ছে চিকিৎসা সেবা


প্রকাশের সময় : ১৬/০৮/২০২১, ৭:৪১ PM / ১২৫
রায়পুরে সরকারি হাসপাতালে অতিমাত্রায় লোডশেডিং ব্যাহত হচ্ছে চিকিৎসা সেবা
print news

“ডাক্তার আছে রোগী ও আছে কিন্তু দুজনেইনি রুপায়। কারন হাসপাতালে বিদ্যুৎ নেই।প্রতিনিয়ত লোডশেডিং জরুরি বিভাগের ডাক্তারেরাও আছে আতংকে সন্ধার পর বিদ্যুৎ চলে গেলে হাসপাতালের পরিবেশ  হয়ে উঠে ভুতূরে  বাংলোর মতো।

মাহমুদুন্নবী সুমন লক্ষ্মীপুর সংবাদদাতাঃ

লক্ষ্মীপুরের রায়পুর উপজেলায় সরকারি হাসপাতালের জরুরি বিভাগের চিকিৎসা সেবা ব্যহত হয় বিদুৎ বিভ্রান্তির কারণে।নেই কোনো জেনারেটর এর ব্যবস্থা।

ঘন ঘন লোডশেডিং এর কারনে বিদ্যুৎ যাওয়া আসা করে, জরুরি বিভাগের রুম সহ হাসপাতালের অধিকাংশ রুম ভুতুড়ে অবস্থা বিরাজ করে। দূর দুরান্ত থেকে অনেক রোগী চিকিৎসা সেবা নিতে এসে বিদ্যুৎ
চলে গেলে ঘন্টার পর ঘন্টা এমন কি দীর্ঘ সময় পর্যন্ত অপেক্ষায় থাকতে হয় রোগীদের।
এমন কি বিদ্যুৎ চলে গেলে নেই কোনো আইপিএস বা জেনারেটর এর ব্যবস্থা।

IMG 20210714 160849 scaled
হাসপাতালের জরুরি বিভাগের চিকিৎসা সেবা নিতে এসে গাজী নগরের আব্দুল মতিন, শায়েস্তানগর থেকে আকলিমা খাতুন,মিতালি বাজার থেকে শরীর হোসেন মোল্লার হাটের জসিম মোল্লা, খাসের হাটের খালেদ মাঝি,আরিফ দেওয়ান সহ অসংখ্য মানুষ ক্ষোভ প্রকাশ করতে দেখা যায়।

এই ব্যপারে জরুরি বিভাগের চিকিৎসক রিয়াজ হোসেন এর সাথে কথা বললে তিনি বলেন, দীর্ঘদিন যাবত এইভাবেই চিকিৎসা সেবা দিয়ে আসছি।

একটা রুগীকে সেলাই করা অবস্থা বিদ্যুৎ চলে গেলে আধঘন্টা পর্যন্ত অপেক্ষা করেছি।
এই সমস্যার কথা ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাদের সঙ্গে আলাপ করেছি।

তারা দ্রুত সমাধান করে দিবেন বলে আশ্বাস দেন। কিন্তু আজ অব্দি সমাধান করা হয়নি।

এই ব্যাপারে হাসপাতালের আবাসিক মেডিকেল অফিসার ডাঃ বাহারুল আলম জানান, দুইটি আইপিএস ছিলো তা নষ্ট হয়ে যাওয়া সাময়িক অসুবিধা হচ্ছে।

হাসপাতালে আপাতত বরাদ্ধ না থাকায় দ্রুত সমাধান করা সম্ভব হচ্ছে না। এমপি মহোদয় সাথে বিষয়টি নিয়ে কথা বলেছি তিনি তার বরাদ্দ থেকে দুইটি আইপিএস খুব শীগ্রই দিবেন বলে আশ্বস্ত করেছেন।

এবিষয় উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা জাকির হোসেন এর মুঠোফোনে যোগাযোগ করা হলে তাকে পাওয়া যায়নি